বৃহস্পতিবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন

Translator
Translate & English
সংবাদ শিরোনাম
স্মরনে নবাবসিরাজউদ্দৌলা। হলো না সব বাংলার ঐতিহ্যবাহী নবাবি ব্যাপার স্যাপার। প্রধানমন্ত্রী:-সংসদে সত্যিকারের শক্তিশালী বিরোধী দল চেয়েছিলাম ৭ নম্বর বিপদ সংকেত মোংলা পায়রা বন্দরসহ ৯ জেলায় । নগরীতে আমিনুল হকের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল শ্রমেরমর্যাদা, ন্যায্যমজুরি, ট্রেডইউনিয়নঅধিকারওজীবনেরনিরাপত্তারআন্দোলনশক্তিশালীকরারদাবিনিয়েআশুলিয়ায়মেদিবসপালন । সোনারগাঁয়ে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে স্থানীয়  প্রভাবশালী  মাদকব্যবসায়ী । জেলা খুলনার দাকোপে ব্রোথেলের নারীজাগরনী সংঘের সভানেত্রী রাজিয়া বেগম হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষলক্ষ টাকা। ঘু‌র্ণিঝড় ফ‌নি আঘাত আনতে পা‌রে ৪ মে, য‌দি বাংলা‌দে‌শে আঘাত হা‌নে ত‌বে্রে আক‌টি সিডর হ‌তে পা‌রে বাংলা‌দে‌শে।  গাজীপুরে ফ্রেন্ডস ট্যুরিজম আয়োজন করলো সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতার ।
আমার এলাকায় কোন মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ থাকবে না: সদর থানার ওসি সমীর

আমার এলাকায় কোন মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ থাকবে না: সদর থানার ওসি সমীর

সিনিয়র রিপোর্টার নাসির উদ্দিন গাজীপুরঃ নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম, দেয়া হয়েছে মাদক বিক্রয় ও সেবনকারীদের সুচিকিৎসা ও ভালো হওয়ার সুযোগ। তারপর আত্মসমর্পনের নির্দেশ অন্যথায় কঠোর ব্যবস্থা। যতদিন আমি এখানে থাকি, ততদিন কোন মাদক থাকবে না। মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সদর থানা অফিসার ইনচার্জ সমীর চন্দ্র সূত্রধর। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমানের নির্দেশে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ সমীর চন্দ্র সূত্রধরের তত্ত্বাবধানে সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করে মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ নির্মূল অভিযানে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে ৭ দিনে ১৮টি মামলায় ৫৫জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে সদর থানা পুলিশ। সম্প্রতি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সমীর চন্দ্র সূত্রধর থানার অন্যান্যা পুলিশ অফিসারদের নিয়ে মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানের গুরুত্ব তুলে ধরেন। এ সময় সকল অফিসার ও পুলিশকে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও জঙ্গীবাদ নির্মূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশনা প্রদান করেন। গাজীপুর সদর থানা অফিসার ইনচার্জ সমীর চন্দ্র সূত্রধরের নেতৃত্বে গত ২২ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত থানার বিভিন্ন এলাকায় মাদক ও ক্রাইম জোন হিসেবে পরিচিত স্থানে অভিযান চালিয়ে ভূয়া ডিবি পুলিশ, ইয়াবা, গাজা, ফেন্সিডিল বিভিন্ন মাদক দ্রব্যসহ দেড় ডজন নিয়মিত মামলায় অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করেন। এ ব্যাপারে মেট্রোপলিটন সদর থানায় জয়দেবপুর থানায় মামলা নং ৪২(২)১৯, ৪৫ (২)১৯, ৪৬(২)১৯ ও ৪৩(২)১৯, ৪৭(২)১৯, এই ৫টি মামলা হয়েছে। থানা পুলিশ ৬ জনকে এবং বিশেষ অভিযানে ভূয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে বিভিন্ন ডাকাতি, ছিনতাই ও দস্যুতার অভিযোগে ৩ ডাকাতকে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রসহ আটক করে, মামলা নং ৪৭(২)১৯। পুলিশ গত ২৪ ঘন্টায় ৯জনকে মাদক ও ডাকাতির অভিযোগে গ্রেফতার করেছে। তাছাড়া সদর থানার আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার মানবপাচার, মাদক দ্রব্য বেচা-কেনার অভিযোগে ৩৭জন নারী-পুরুষ সহ সর্বমোট ৪৬ জন আটক করে আদালতে প্রেরণ করেছে। গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি সদর থানার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ নির্মূলের লক্ষ্যে বিশেষ অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় সুনামগঞ্জের গিয়াস উদ্দিনের পুত্র সৌরভ (২০) কে জয়দেবপুর শহর থেকে গাঁজাসহ আটক, আদালতে প্রেরণ করেন। ভোলা জেলার গৌরনদী দেওতলা গ্রামের ইউসুফ আলীর পুত্র বাবুল (২৫) কে সালনা এলাকা থেকে ইয়াবাসহ আটক করে, মামলা নং ৫৮(২)১৯। গাজীপুর শহরের ছোট দেওড়া এলাকার আরিফ হোসেন (১৮), মামলা নং ৫৯(২)১৯। মেট্রোপলিটন সদর থানা লক্ষীপুরা এলাকার আবুল কসাইয়ের পুত্র হারুন-অর-রশিদ (৩৮) কে ২০পিস ইয়াবাসহ পুলিশ আটক করে, যার মামলা নং ৬০(২)১৯। সদর থানা চাপুলিয়া এলাকার আব্দুল লতিফের পুত্র মিনহাজ (২০), মামলা নং ৬১(২)১৯, জামালপুর ইসলামপুর এলাকার সুরুজ আলীর পুত্র নাজমুল (২২) কে সাহাপাড়া এলাকা ১০ পিস ইয়াবাসহ , মামলা নং ৬২(২)১৯। জয়দেবপুর রেল স্টেশন এলাকা শেরপুর শ্রীবর্ধী থানার রুস্তম আলীর পুত্র লালু মিয়া (২০) কে আটক করে, মামলা নং ৬৩(২)১৯, সদর থানার ক্ষুদে বরমীর আমীর আলীর পুত্র জুলহাস (৪৫) ও চাপুলিয়ার গ্রামের নিয়ামত আলীর পুত্র ফারুক (২৫) কে পুলিশ গ্রেফতার করে, মামলা নং ৬৪(২)১৯। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে মাদক, সন্ত্রাস, চাদাঁবাজির অভিযোগে ১০টি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করেছেন। তাছাড়া গাজীপুর শহর নিয়ামত সড়কে অভিযান চালিয়ে সুলতান মিয়ার স্ত্রী মাদক সম্রাজ্ঞী ময়না বেগম (৪৫)কে আটক করে, এসময় তার দখল থেকে ৭ পিস ফেন্সিডিল উদ্ধার করে, মামলা নং ৬৫(২)১৯, প্রকাশ থাকে ময়না বেগমের মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অসামাজিক কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগে একাধিকবার গ্রেফতার হয়েছে। ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধরের মাদক নির্মূল ও নিয়ন্ত্রণকারী চিহ্নিত করে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযানের এলাকাবাসী প্রশংসা করেছে। সম্প্রতি গাজীপুর শহরের বিলাশপুর, চাপুলিয়া এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ নির্মূলে কার্যক্রম উদ্বোধন বিভিন্ন স্থানে মাদক বিরোধী সমাবেশে মাদক বিক্রয় ও নিয়ন্ত্রণকারীদের সুচিকিৎসা ও ভালো হওয়ার জন্য তিন দিনের আলটিমেটাম দেন। অন্যথায় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, আমার থানা এলাকায় কোন মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদা বাজ থাকবে না, যতদিন আমি এই থানায় কর্মরত থাকি। তিনি সকলের সহযোগীতা চেয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Translate & English
Design & Developed BY ThemesBazar.Com