শুক্রবার, ১৯ Jul ২০১৯, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

Translator
Translate & English
সংবাদ শিরোনাম
স্মরনে নবাবসিরাজউদ্দৌলা। হলো না সব বাংলার ঐতিহ্যবাহী নবাবি ব্যাপার স্যাপার। প্রধানমন্ত্রী:-সংসদে সত্যিকারের শক্তিশালী বিরোধী দল চেয়েছিলাম ৭ নম্বর বিপদ সংকেত মোংলা পায়রা বন্দরসহ ৯ জেলায় । নগরীতে আমিনুল হকের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল শ্রমেরমর্যাদা, ন্যায্যমজুরি, ট্রেডইউনিয়নঅধিকারওজীবনেরনিরাপত্তারআন্দোলনশক্তিশালীকরারদাবিনিয়েআশুলিয়ায়মেদিবসপালন । সোনারগাঁয়ে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে স্থানীয়  প্রভাবশালী  মাদকব্যবসায়ী । জেলা খুলনার দাকোপে ব্রোথেলের নারীজাগরনী সংঘের সভানেত্রী রাজিয়া বেগম হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষলক্ষ টাকা। ঘু‌র্ণিঝড় ফ‌নি আঘাত আনতে পা‌রে ৪ মে, য‌দি বাংলা‌দে‌শে আঘাত হা‌নে ত‌বে্রে আক‌টি সিডর হ‌তে পা‌রে বাংলা‌দে‌শে।  গাজীপুরে ফ্রেন্ডস ট্যুরিজম আয়োজন করলো সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতার ।
ঘষামাজা করে, তথ্য পরিবর্তন করা দলিল মুলে ভুমি অধিগ্রহনের  পৌনে ২ কোটি টাকা বিল উত্তোলনের আদেশ দেন-জেলা প্রশাসক গাজীপুর, ডঃ দেওয়ান মুহাম্মাদ হুমায়ুন কবির।

ঘষামাজা করে, তথ্য পরিবর্তন করা দলিল মুলে ভুমি অধিগ্রহনের  পৌনে ২ কোটি টাকা বিল উত্তোলনের আদেশ দেন-জেলা প্রশাসক গাজীপুর, ডঃ দেওয়ান মুহাম্মাদ হুমায়ুন কবির।

সময়ের কণ্ঠ গাজীপুর রিপোর্টারঃঘুষ না পেলে বৈধ মালিকানার কাগজপত্র সরিয়ে বিকল্প পন্থায় অবৈধ মালিকদের কাগজপত্র হয়ে যায় বৈধ মালিকানা। কাগজপত্র ঘেটে দেখা যায়, দায়ী ডিসি সহ ৭ কর্মকর্তা। জেলা প্রশাসক ( ডিসির) অসতর্কতার কারনেই, গাজীপুরের সাবেক ৩ কর্মকর্তাসহ,(১) অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাহমুদুল হাসান গাজীপুর (২) এল,এ,ও হাফিজা জেসমিন (৩) অতিরিক্ত ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিমসহ, বর্তমানে ও বহাল তবিয়তে বিদ্যমান ডিসিসহ ৪ কর্মকর্তা (৪) সার্ভেয়ার বেলাল (৫) কানুনগো আবুল বাশার (৬) ভুমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ জালাল উদ্দিন।। তারা নৈতিকভাবে দায়িত্ব পালন করলে। দলিলে ঘষামাজা করে তথ্য পরিবর্তনের মাধ্যমে। টেম্পারিং/ জাল-জালিয়াতিভাবে মোটা অংকের বিল উত্তোলনের ঘটনা ঘটতো না। ক্ষমতাধর হিসেবে চিহ্নিত দুর্নীতিবাজ, ততকালীন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক( রাজস্ব) গাজীপুর, মাহমুদুল হাসান, অতিরিক্ত ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিমসহ। এদের ছত্রছায়াতে দালাল চক্রের মুল হোতা (১) কামরুল ইসলাম (২) মোছলেম মৃধা তাদের অপতৎপরতার কারনেই। ভুমি অধিগ্রহনের ক্ষতিপূরণ এর বিল, প্রকৃত মালিকগন বিল উত্তোলন করতে পারেন না। ভুয়া অভিযোগ ও মামলা মোকদ্দমার মাধ্যমে ভুমি অধিগ্রহনের টাকা আটকে দেয়া – সেই টাকা আবার কমিশনের বিনিময়ে ছাড়ার ব্যবস্থা করা সহ নানা ধরনের, কুট-কৌশলের আশ্রয় নেন।। কতিপয় লোকের, যেমন দালাল, কামরুল, মোছলেম মৃধা তাদের কাছে জিন্মি প্রকৃত মালিকগন। চেকের বিপরীতে কমিশন আদায়ের অভিযোগ নতুন করে কিছু নয়। এস,এ, ও আর এস, রেকর্ডার মালিক মৃত – তৈজদ্দিন সরকার ওরফে তজিম উদ্দিন সরকারে ওয়ারিশান মোঃ দুলাল উদ্দিন সরকার গংদের নামীয় – নামজারী ও জমাভাগ নথি নং- ১৩৬৭/১৬-১৭ অনুমোদন এর তারিখ ০৮/০১/১৭ মুলে ১০৫৫১ নং- আর এস জোত খুলিয়া। বাংলা ১৪২৩ পর্যন্ত হাল সন ভুমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করিয়া, ভোগদখল থাকা অবস্থায় (৬) ধারার নোটিশ দিলে উক্ত নোটিশ নিয়া বিগত ০২/০৫/১৭ তারিখে যথারীতি, গাজীপুর ভুমি অধিগ্রহণ শাখায় উপস্থিত হয়ে মালিকানার কাগজপত্র দাখিল করেন। কাগজপত্র দেখে যাচাই বাছাই করে ততকালীন অতিরিক্ত ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিম, মোঃ দুলাল উদ্দিন সরকার গংদের প্রস্তাব করেছিলেন যে, পুরো ১.১২ একর জায়গার উপর অধিগ্রহনের ক্ষতিপূরণ এর বিল তাদের নামে দেওয়া হবে।। তবে শর্তানুযায়ী বিনিময়ে, ৫০% টাকা অফিস কে দিতে হবে। উক্ত প্রস্তাবে রাজি হয়নি বলেই, দালাল, কামরুল ও মোছলেম মৃধার মাধ্যমে শুরু করেন নতুন মিশন। দুলাল উদ্দিন সরকার গংদের নাম জারী বাতিল করতে, তজিমদ্দিন এর আপন বড় ভাই, দাতা – মৈজদ্দিন সরকার, গ্রহীতাদ্বয়, মহাম্মদ আলী গং- সর্ব পিতা, আব্দুল বছির সরকার সাং- চক পাড়া ইউপি- মাওনা, থানা শ্রীপুর। বিগত ২০/০৪/১৯৭২ ইং তারিখে ৬০০৮ নং সাব কবলা রেজিঃকৃত দলিল মুলে – ১৭৫ শতাংশ জমির মালিকানা দাবি করে খারিজ বাতিলের দরখাস্ত করেন যে, ( তফসিলে বর্নিত ৪৮৩০ নং দাগ হইতে ভোগদখল বুঝাইয়া দিলাম মহাম্মদ আলী গংদের) কিন্তু মহাম্মদ আলী গংদের দাখিল করেন, ৬০০৮ নং দলিলের প্রকৃত তফসিল এর দখল বিষয়ক লাইন।(৪৮৩০- আটচল্লিশশত ত্রিশ নং দাগ হইতে ভোগ দখল বুঝাইয়া দিলাম) টেম্পারিং/জালিয়াতি / ঘষামাজা করে মুছিয়া ফেলিয়া, উক্ত দলিল দস্তাবেজ ব্যবহার করিয়ে ততকালীন মাওনা ইউনিয়ন এর ভুমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ জালাল উদ্দিন এর মনগড়া প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সঠিকভাবে যাচাই, বাছাই, মুল দলিল না দেখেই। ডিসি সহ ৬ কর্মকর্তাকে রাতকানা বানিয়ে। বিজ্ঞ আদালতকে ভুল বুঝাইয়া নামজারী ও জমাভাগ নথি নং- ১৩৬৭/১৬-১৭ এর আর এস, ১০৫৫১ নং জোত বাতিলের আদেশ বহাল রেখে,,, সর্বশেষ নোটিশ নং- ০৫.৪১.৩৩০০.০০১১.০০.০২৮/১৭ এল,এ, কেস নং- ১০/২০১৬-১৭ মুলে অধিগ্রহণকৃত মাওনা মৌজায়, আর,এস ২২০৭৭ নং দাগের ভুমির মোঃ দুলাল উদ্দিন সরকার গংদের, আপত্তির প্রেক্ষিতে বিগত, ০৪/১০/১৭ ইং তারিখে সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক গাজীপুর এর অফিস কক্ষে বসে, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে অধিকতর শুনানিকালে,, দুলাল উদ্দিন সরকার গংদের নিয়োজিত বিজ্ঞ আইনজীবী বারংবার, ৬০০৮ নং মুল দলিলটি উপস্থাপন করার জন্য অনুরোধ করিলে ও শুনেন নি / আমলে নেননি, একতরফা ভাবে রাতকানা প্রতিবেদন অনুযায়ী। জেলা প্রশাসক গাজীপুর – ডঃ দেওয়ান মুহাম্মাদ হুমায়ুন কবির দলিল জাল- জালিয়াতির বিষয় আমলে না নিয়ে মহাম্মদ আলী গংদের দাখিলকৃত “২০/০৪/১৯৭২ ইং তারিখের ৬০০৮ নং- দলিলের ঘষামাজা করা ফটোকপির স্ব- পক্ষে অধিগ্রহনের ক্ষতিপূরণ এর বিল উত্তোলনের আদেশ প্রদান করেন।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Translate & English
Design & Developed BY ThemesBazar.Com