মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:০৭ অপরাহ্ন

নগরকান্দায় শিক্ষার্থীকে মারপিট প্রতিবাদে সহপাঠিদের বিক্ষোভ

নগরকান্দায় শিক্ষার্থীকে মারপিট প্রতিবাদে সহপাঠিদের বিক্ষোভ

ফরিদপুর প্রতিনিধিঃফরিদপুরের নগরকান্দায় দহিসারা ইসলামীয়া দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে মারপিট করে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মরপিটের প্রতিবাদে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। সংবাদ পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার এফ এম মহিউদ্দিন উপস্থিত হয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা তাদের বিক্ষোভ কর্মসুচী স্থগিত করে।

জানাগেছে বুধবার সকালে উপজেলার দহিসারা ইসলামীয়া দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর উক্ত ছাত্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহনে মাদ্রাসায় যাচ্ছিলো। মাদ্রাসার পাশে দহিসারা গ্রামের আমির হোসেনের স্ত্রী খালেদা বেগম (৪০) ঐ ছাত্রীকে লাঠি দিয়ে এলোপাথারী মারপিট করে। ছাত্রীর চিৎকারে সহপাঠি ও মাদ্রাসার শিক্ষকেরা উপস্থিত হয়ে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। এ সংবাদ মাদ্রাসায় ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসার ক্যাম্পাসে ও পাশের সড়কে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করে। প্রতিবাদ সভায় শিক্ষার্থীরা বলেন এ নির্যাতনের সঠিক বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমরা পরীক্ষায় অংশগ্রহন করবো না। খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার এফ এম মহিউদ্দিন ও নগরকান্দা থানা অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান উপস্থিত হয়ে সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাসে এবং অভিযুক্ত খালেদা বেগমকে গ্রেফতার করলে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল স্থগিত করে পরীক্ষার কক্ষে প্রবেশ করে। এ ব্যাপারে আহত ছাত্রীর মা সাবিনা বেগম বাদী হয়ে নগরকান্দা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত খালেদা বেগম থানা পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন।

অভিযুক্ত খালেদা বেগম বলেন উক্ত ছাত্রী আমার মেয়ের বিরুদ্ধে আজেবাজে মন্তব্য করার কারনে আমি ওকে লাঠি দিয়ে ২/৩ টি আঘাত করেছি।

মাদ্রাসার সুপার এনামুল হক বলেন, ছাত্রীর শোর চিৎকারে আমরা ওকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। বিষয়টি মাদ্রাসার সভাপতিকে অবগত করা হয়েছে।

মাদ্রাসার সভাপতি ও চরযোশরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান পথিক তালুকদার বলেন, বহিরাগত একজন লোক মাদ্রাসার ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে কোমল মতি ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত করে যে অপরাধ করেছে আমি এর সঠিক বিচার দাবী করছি।

সহকারী পুলিশ সুপার এফ এম মহিউদ্দিন বলেন, এঘটনার আমরা অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছি। এমন ঘটনা যেন আর কোথাও না ঘটে সেটা আমাদের নজরদারীতে থাকবে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Design & Developed BY ThemesBazar.Com