মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:২৩ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর গাড়ি আটকে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগান

মন্ত্রীর গাড়ি আটকে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগান

ভিকারুন্নিসা নূন স্কুলের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রির আত্মহত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার সহপাঠীরা পরীক্ষা বর্জন করে স্কুলের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়েছে। সেসময় শিক্ষামন্ত্রী স্কুল পরিদর্শনে গেলে তার গাড়িও আটকে দেয় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা মন্ত্রীর গাড়ি অবরোধ করে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ শ্লোগান দিতে থাকে। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের শ্লোগানের মুখে শিক্ষামন্ত্রী গাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন। এ সময় তিনি ২০ মিনিট ধরে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং ঘটনার বিচারের আশ্বাস দেন।

এদিকে, এ ঘটনাকে দুঃখজনক উল্লেখ করে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস তাকে টিসি দেয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। স্কুল পরিদর্শন করে শিক্ষামন্ত্রী জানান, এ ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন তিনি।

অরিত্রির আত্মহত্যা মেনে নিতে পারছে না তার সহপাঠীরা। তাই দোষীদের শাস্তির দাবিতে আজ সকাল থেকেই স্কুলের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেন ক্ষুব্ধ সহপাঠী ও অভিভাবকরা। সেই সঙ্গে সহপাঠীদের একাংশ পরীক্ষাও বর্জন করেন।

একজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘তাকে এত পরিমাণ অপমান করা হয়েছে যে, সে সুইসাইড করতে বাধ্য হয়েছে। এখন সেটা কার জন্য আমাদের প্রিন্সিপালের জন্য।’

আরও একজন বলেন, ‘অরিত্রি কী কষ্ট পেয়ে মারা গেছে, সেটা আমরা জানি। প্রিন্সিপাল বা ভাইস প্রিন্সিপাল তা জানেন না। তাই তাদের সাসপেন্ড করা হোক।’

ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য স্কুল অধ্যক্ষ ক্ষমা চাইলেও অস্বীকার করেন টিসি দেয়ার কথা।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস ক্ষমা চেয়ে বলেন, ‘এরকম অনাকাঙ্ক্ষিত একটি মৃত্যুর জন্য আমরা অত্যন্ত দুঃখিত এবং ক্ষমাপ্রার্থী। গভর্নিং বোর্ড বসেছিলাম, আমরা তদন্ত কমিটি করেছি।’

এদিকে, ক্ষুব্ধ সহপাঠী ও অভিভাবকদের সান্ত্বনা দিতে স্কুল পরিদর্শনে যান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকের এমন ব্যবহার কাম্য নয় মন্তব্য করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আত্মহত্যা এই স্কুলের পরিবেশ থেকে প্রতিফলিত হয়। অন্যদিকে এটা একটা ক্রিমিনালও। এর জন্য আমাদের যত ব্যবস্থা আছে, সব আমরা নেব। আগেও কোন কিছু বলে দেয়াটা সঠিক নয়।’

শিক্ষামন্ত্রী পরিদর্শন শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় অরিত্রির সহপাঠীরা দ্রুততম সময়ে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবীতে মন্ত্রীর গাড়ি আটকে দেন। এ সময় মন্ত্রী, আগামী ৩ দিনের মধ্যে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলে শিক্ষা মন্ত্রীর গাড়ি ছেড়ে দেয়া হয়।

এক পর্যায়ে অরিত্রির অন্য স্কুলের ক্ষুব্ধ বন্ধুরা ভিকারুন্নিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের সামনে এসে অবস্থান নিলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। সেসময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের বাকবিতণ্ডা হয়।

ভিকারুন্নিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রি পরীক্ষায় মোবাইল ফোন নিয়ে গিয়ে নকল করছিল এমন অভিযোগে তাকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়। পরবর্তীতে পরীক্ষাতে অংশ নিতে বাবা মাসহ দ্বারস্থ হয় প্রধান শিক্ষকের কাছে। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ এ ধরনের আচরণের জন্য অরিত্রি এবং তার বাবা মাকে অপমান করে। এই কারণেই অরিত্রি আত্মহত্যা করে বলে অভিযোগ তার পরিবার ও সহপাঠীদের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Design & Developed BY ThemesBazar.Com