রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন

Translator
Translate & English
সংবাদ শিরোনাম
সীমান্তবর্তী উপজেলা শার্শায় শুরু হয়েছে মালটা লেবুর চাষ, ব্যাপক ফলনে খুশি চাষীরা

সীমান্তবর্তী উপজেলা শার্শায় শুরু হয়েছে মালটা লেবুর চাষ, ব্যাপক ফলনে খুশি চাষীরা

বেনাপোল সংবাদদাতা :সীমান্তবর্তী উপজেলা শার্শার উলাশী ইউনিয়নে শুরু হয়েছে মালটা লেবুর চাষ। দেশীয় বাজারে চাহিদা থাকার কারনে কৃষি অফিসের পরামর্শে শার্শার উলাশী ইউনিয়নের চাষী জামাল উদ্দীন পিকুল ও হায়দার আলী গগন এই মালটা লেবুর চাষ শুরু করেছেন। শার্শা উপজেলা কৃষি অফিস থেকে মালটা লেবুর চারা সংগ্রহ করে শার্শার উলাশী ইউনিয়নের জামাল উদ্দিন পিকুল ২০১৫ সালে ২ বিঘা জমিতে ৯০ টি চারা রোপন করেন। পরে তার ভাই পটুয়াখালী থেকে ২০০ টি মালটা লেবুর চারা এনে রোপন করেন। এখন তাদের জমিতে মোট মালটা লেবুর গাছ রয়েছে ৩০০ টি। প্রতিটি চারা ১৫০ টাকা দরে ক্রয় করে চাষ করেছেন তিনি। ৩ বছর আগে তারা এই মালটা লেবুর চারা রোপন করেন এবছর প্রথম বারের মত তাদের গাছে ফল আসে । মালটা গাছে ফল আসতে শুরু হয় জুন মাসে এবং নভেম্বর মাস পর্যন্ত এ গাছ ফল দিয়ে থাকে। মালটা লেবু গাছ রোপন করার ২ বছর পর প্রাথমিকভাবে ফল আসতে শুরু করে। তবে জামাল উদ্দিন পিকুলের জমির মালটা গাছে এ বছরের মে মাস থেকে ফল আসতে শুরু করেছে। প্রতিটি গাছ থেকে ৪০ থেকে ৫০ টি ফল পাওয়া যাবে । ১ বিঘা জমিতে মালটা চাষ করতে খরচ হয় ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা এবং বিক্রী হবে ১ লক্ষ টাকার অধিক । মালটা লেবু চাষে অধিক লাভ হওয়াতে স্থানীয় চাষীরা আগ্রহী হয়ে উঠছেন মালটা লেবু চাষ করতে। মালটা লেবু গাছ দেখতে সবুজ আকারে ৩/৪ ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়। মালটা ফল দেশীয় বাজারে বিক্রি হবে ৩০ থেকে ৪০ টাকা পিস। মালটা লেবু খেতে বেশ সুস্বাদু।

মালটা লেবু চাষী জামাল উদ্দিন পিকুল জানান,আমি শার্শা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর থেকে ২০১৫ সালে ২ বিঘা জমিতে ৯০ টি চারা রোপন করি। এই বছর আমার গাছে ফল এসেছে আশা করছি প্রত্যশা অনুযায়ী ফল পাবো এবং লাভবান হবো।

মালটা লেবু চাষী হায়দার আলী গগন জানান, আমি পটুয়াখালী থেকে ২০০ টি মালটা লেবুর চারা এনে রোপন করি। যে পরিমান ফল ধরেছে যদি আবহাওয়া প্রতিকুলে থাকে তাহলে অধিক পরিমান লাভবান হতে পারবো।

শার্শা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হিরক কুমার সরকার জানান, মালটা লেবু একটি দেশীয় ফল। শার্শা মাটি ও আবহাওয়া ফল চাষের জন্য বেশ উপযোগী। শার্শা উপজেলায় এবার ২০ বিঘা জমিতে মালটা লেবুর চাষ করা হয়েছে। এবং উপজেলা কৃষি অফিস থেকে বিনামূল্যে মালটা লেবুর চারা ও সার প্রদান করা হয়েছে।চাষীরা ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচে মালটা লেবু চাষ করে অধিক লাভবান হতে পারে। এজন্য আমরা চাষিদেরকে উচ্চ মূল্যের ফল চাষের জন্য নানা পরামর্শ দিয়ে থাকি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Translate & English
Design & Developed BY ThemesBazar.Com