মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৪৪ অপরাহ্ন

দুঃসময়ের বন্ধুকে ভুলে যায়নি কাতার

দুঃসময়ের বন্ধুকে ভুলে যায়নি কাতার

১৫০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ

যুক্তরাষ্ট্রের শুল্কারোপের কারণে সংকটময় পরিস্থিতিতে পড়েছে তুরস্কের অর্থনীতি। এমনতাবস্থায় তুরস্ককে নিজেদের ভাই হিসেবে আখ্যায়িত করে ১৫ বিলিয়ন (দেড় হাজার কোটি) ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি। এর মাধ্যমে কাতার প্রমাণ করলো যে দুঃসময়ের বন্ধুকে ভুলে যায়নি তারা।

যখন সৌদির নেতৃত্বে কাতারের ওপর সর্বাত্মক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলো প্রতিবেশি চার দেশ। তখন কাতারের দুঃসময়ে গরু, দুধ, নিত্যপণ্যসহ সকল প্রকার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলো তুরস্ক। কাতারের সেই নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলেও বন্ধু তুরস্ককে ভুলে যায়নি কাতার। তুরস্কের এই দুঃসময়ে কাতারের এই দেড় হাজার কোটি বিনিয়োগের ঘোষণা তারই প্রমাণ করে।

তুরস্কের দুঃসময়ে সবার আগে ছুটে এসেছেন বন্ধুরাষ্ট্র কাতার। শুধু কথার মাধ্যমে পাশে দাঁড়ানো নয় বিশাল এই অঙ্ক বিনিয়োগের ঘোষণাও দিয়েছেন কাতারের আমির।

বুধবার তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ানের সঙ্গে বৈঠকের পর কাতারের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান তুর্কি প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র। খবর আনাদুলু এজেন্সির।

এক টুইটে কাতারের আমির বলেন, আমরা তুর্কি ভাইদের পাশে আছি। যারা কাতার এবং মুসলিম বিশ্বের পাশে দাঁড়িয়েছে। আঙ্কারায় প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের সঙ্গে আমার গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার অংশ হিসেবে আমরা সেদেশে ১,৫০০ কোটি ডলারের বিনিয়োগ প্রকল্পের ঘোষণা দিয়েছি। এসময় তুরস্কের অর্থনীতিকে মজবুত ও দৃঢ় বলে আখ্যায়িত করেন কাতারের আমির।

তুরস্কের পণ্যের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের শুল্কারোপের পর প্রথম ব্যক্তি হিসেবে তুরস্ক সফর করলেন কাতারের আমির। কাতারের আমিরের সঙ্গে বৈঠককে অত্যন্ত ফলপ্রসূ বলে উল্লেখ করেছেন এরদোয়ান। এসময় তুরস্কের পাশে দাঁড়ানোর জন্য কাতারকে ধন্যবাদ জানান এরদোয়ান।

তুর্কি প্রেসিডেন্টের প্রেস অফিস অনুযায়ী তিন ঘণ্টার ওই বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ও আঞ্চলিক উন্নয়ন জোরদারের বিষয়ে আলোচনা করেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান।

সম্প্রতি তুরস্কের বেশ কয়েকটি পণ্যের ওপর যুক্তরাষ্ট্র শুল্কারোপ করলে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়ে তুরস্ক। হঠাৎ করে লিরার মান ২০ শতাংশ কমে যায়। তবে এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য এরই মধ্যে ডলার বাদ দিয়ে লিরার মাধ্যমে অর্থনৈতিক লেনদেনের ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। এছাড়া পাল্টা জবাব হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যের ওপর দ্বিগুণ শুল্কারোপের ঘোষণা দেন এরদোয়ান। এরই মধ্যে কাতার, বাহরাইনসহ কয়েকটি দেশ তুরস্কের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Design & Developed BY ThemesBazar.Com