বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অর্থ যোগান দিয়েছে তারেক

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অর্থ যোগান দিয়েছে তারেক

বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর কয়েকদিন ধরে রাজধানীতে শিক্ষার্থীরা যে আন্দোলন করেছিল, বিএনপি নেতা তারেক রহমান সেই আন্দোলনের টাকা যোগান দিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মাদারীপুর জেলা পরিষদে আয়োজিত এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

গত ২৯ জুলাই দুপুরে বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাসের চাপায় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। ঘটনার পর নৌমন্ত্রী শাজাহান খান সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হাসতে হাসতে বিষয়টিকে নিয়ে বিদ্রুপাত্মক মন্তব্য করেন। এর প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রায় এক সপ্তাহের মতো রাজধানীতে টানা বিক্ষোভ দেখায়।

এ অবস্থার মধ্যেই আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে চার ছাত্রকে হত্যা ও ধর্ষণের গুজব ছাড়ানো হলে শিক্ষার্থীরা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে হামলার চেষ্টা করে। এ নিয়ে দুই পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষে বেশ কজন আহত হয়। এছাড়া নিরাপদ আন্দোলনের দাবিতে বিক্ষোভে সংঘর্ষের জেরে ইস্ট ওয়েস্টসহ তিনটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়।

নৌমন্ত্রী বলেন, ঢাকায় গাড়ির নিচে পড়ে দুইজন কোমলমতি শিক্ষার্থী নিহতের পর যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল, সে আন্দোলনে বিএনপি নার্সিং করার চেষ্টা করছে।

বিএনপি বিগত দিনে সকল আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে দাবি করে নৌমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি এখন আর রাজনৈতিক দল হিসেবে নেই, এটি এখন একটি পরগাছা দলে পরিণত হয়েছে। তারা নিজেরা কোনো আন্দোলন করতে পারে না। দেশে কোনো একটি ঘটনা ঘটলেই সেটিকে উস্কে দিতে চেষ্টা করে।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে নৌমন্ত্রী বলেন, তোমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় মানুষ হতে হবে। এই চেতনায় মানুষ হয়ে ভবিষ্যতে দেশ পরিচালনা করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা না থাকলে এই বাংলাদেশ আর বাংলাদেশ থাকবে না।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাদারীপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিয়াজউদ্দিন খান। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন, জেলা পরিষদের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান লস্কর, সদস্য আমেনা খাতুন বেবী, ফারুক খান প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




Design & Developed BY ThemesBazar.Com