,

সংবাদ শিরোনাম :
» « হারার ভয়ে আওয়ামী লীগ নির্বাচন বানচাল করতে পারে: মওদুদ» « নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বাসা-বাড়িতে পুলিশ প্রতিদিনই হানা দিচ্ছে: রিজভী» « বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে বাংলাদেশ জঙ্গির দেশ হবে’» « তরুণদের মাদক থেকে দূরে রাখবে যোগ ব্যায়াম: ভূমিমন্ত্রী» « জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন পরিচালনা বিভাগের প্রধান ঢাকায় আসছেন রবিবার» « কোচিং বন্ধে মনিটরিং কমিটির কার্যক্রম জোরদার হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী» « কালীগঞ্জে ডিসের লাইন মেরামত করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে যুবকের মৃত্যু» « নড়িয়ায় বোন-দুলাভাইয়ের অাক্রমনে দুই ভাই রক্তাক্ত» « টাঙ্গাইল জেনারেল হাসাপাতালের সোয়া কোটি টাকা বিদ্যুৎবিল বকেয়া ॥ সংযোগ বিচ্ছিন্ন» « টাঙ্গাইলে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার

আইজিপির দৃষ্টি আকর্ষণ থানা অভিযোগ করতে গিয়ে উল্টো হয়রানীর স্বীকার হলেন শেরপুরের বিশিষ্ট্য ব্যবসায়ী সনজিত সাহা।

স্টাফ রিপোটারঃ বগুড়া শেরপুরের বিশিষ্ট্য ব্যবসায়ী সন্ত্রাসীদের ভয়ে জীবন বাঁচাতে স্থানীয় থানায় অভিযোগ করতে গেলে উল্টো হয়রানী স্বীকার হওয়ার অভিযোগ করলেন ভূক্তভোগী সনজিত সাহা ঘটনার সূত্রে জানা যায়। সনজিৎ সাহা ও ওয়াহেদুল এরা একে অপরের বন্ধ হবার সুবাদে দীর্ঘ ৪ বৎসর যাবতৎ একত্রে চাতালের ব্যবসা করে আসছিল। কিন্তু ব্যবসা শুরু করার আগে বিবাদী ওয়াহেদুল সে একটি ব্ল্যাইন চেক দেয় সনজিত সাহাকে তার পর থেকেই চলতে থাকে তাদের ব্যবসা। ইতিমধ্যেই তার উভয়ের সম্মিলিত যৌথ স্বাক্ষরে একটি বগুড়া শাখা থেকে টাটা কোম্পানীর অসোক লিলেন নামের একটি ট্রাক ক্রয় করেন। যার মূল্য ৩৫,২৫,০০০/-টাকা , গাড়ী নং-ঢাকা-মেট্রো-ট-২২-০৮৭১। কিছু দিন অতিবাহিত হতে না হতেই সু-চতুর ওয়াহেদুল ইসলাম তার পাটনার সনজিত সাহাকে না জানিয়ে উক্ত ট্রাকটি অন্যত্র বিক্রি করে ফেলেন। বিষয়টি সনজিত সাহা জানতে পারিলে তার পাটনার ওয়াহেদুল ইসলামকে সনজিত সাহা জিজ্ঞাসা করেন যে তুমি আমাকে না জানিয়ে ট্রাকটির পাটনারশীপ কেন বিক্রয় করিলেন। উত্তরে ওয়াহেদুল বলেন আমার টাকার প্রয়োজন হয়েছে তাই, আমি ট্রাকটি বিক্রি করে দিয়েছি। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে ওয়াহেদুল ইসলাম তার পাটনার সনজিৎ সাহাকে নানা ভয়ভীতি দেখায় ও তাকে প্রাণে মারিয়া ফেলিবার হুমকী দেয়। উপায়ন্তর না পেয়ে, সনজিত সাহা স্থানীয় শেরপুর থানার তদন্ত কর্মকর্তার মোঃ বুলবুল এর নিকট অভিযোগ পত্র দায়ের করিলে তদন্তকারী কর্মকর্তা বুলবুল সনজিত সাহাকে বলেন আমি অহেদুলকে থানায় ডেকে তোমাদের বিষয়টি সমাধান করে দেব। সে জন্য আমাকে তুমি কত টাকা দিবা। এক পর্যায়ে সনজিত সাহা নগদ ৫০,০০০/-টাকা তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ বুলবুলকে দেয়। কিন্তু কাজ তো দূরের কথা এবং থানা থেকে বিভিন্ন হয়রানীর স্বীকার হচ্ছেন ভূক্তভোগী সনজিত সাহা, অনুসন্ধানে আরও জানা যায় যে, অহেদুল ইসলাম যে তার বিভিন্ন ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে সনজিত সাহাকে মেরে ফেলার জন্য তন্য হয়ে খুজচ্ছে তাই নিজের প্রাণ হারানোর ভয়ে সনজিত সাহা ও তার পরিবার আত্মগোপন করে পালিয়ে পালিযে দিন কাটাচ্ছেন এই অসহায় পরিবারটি বিধায় আইজিপি মহোদয়ের সু-হস্তক্ষেপ অতি জরুরী বলে মন্তব্য করলেন ভূক্তভোগী ও তার পরিবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

[related_post themes="flat" id="2130"]

সম্পাদক ও প্রকাশক :মোঃবোরহান,হাওলাদার(জসিম)

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক,সনজিত সাহা

মোবাইল০১৯১২৩৩৮৮৩৪,০১৯১১০৬৯৫১৩

ইমেইল:Somoyerkanth@gmail

বার্তা ও বাণিজ্যিক.কার্যালয় : ২৬২/ক.বাগীচাবাড়ী(৩য়া)ফকিরাপুল.মতিঝিলওসম্পাদক/কর্তৃকতুহিনপ্রিন্টিংপ্রেস ফকিরাপুলমতিঝিল,ঢাকা১০০০।